জেনে নিন চোখের ৫ টি সহজ ব্যায়াম সংক্রান্ত পরামর্শ

Simple-Eye-Exercisesসাঁতার কাটা, জিমে যাওয়া, সাইকেল চালানো, জগিং বিভিন্ন ব্যায়াম করে আমরা আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখছি। ঠিক একই ভাবে চাইলে আমরা চোখের কিছু ব্যায়াম করে আমাদের চোখ সুস্থ রাখতে পারি। অবাক হওয়ার কিছু নেই, চোখেরও কিছু ব্যায়াম আছে। তবে চলুন দেখি চোখের ৫ টি সহজ ব্যায়াম।

১) একটি আরামদায়ক চেয়ারে বসুন। দু হাতের তালু খুব ভাল করে ঘষতে থাকুন যতক্ষণ পর্যন্ত না হাতের তালু গরম হয়ে ওঠে। এবার আপনার চোখ বন্ধ করে হাতের তালু দিয়ে চোখের পাতা ঢেকে দিন। খুব বেশি চাপ দিবেন না। খেয়াল রাখবেন আপনার নাক যেন ঢাকা না পড়ে, আর আপনার হাতের আঙ্গুলের ফাঁক দিয়ে যেন আলো না ঢোকে। ধীরে ধীরে শ্বাস নিন এবং আপনার জীবনের কোন আনন্দময় মুহূর্ত ভাবার চেষ্টা করুন। হাতের তালু ঠাণ্ডা হয়ে এলে আবার করুন। এভাবে তিন মিনিট বা এর বেশি সময় ধরে করুন।

২) আপনার চোখ ৩-৫ সেকেন্ড এর জন্যে শক্ত করে বন্ধ করুন। আবার ৩-৫ সেকেন্ড এর জন্যে খোলা রাখুন। এইভাবে ৭-৮ বার করুন।

৩) প্রথমে বসুন। সোজা দেয়ালের দিকে তাকান। আপনার চোখকে প্রথমে ঘড়ির কাঁটার দিকে ঘোরান। এরপর পলক ফেলুন। আবার ঘড়ির কাঁটার বিপরীতে ঘোরান। আবার পলক ফেলুন। এইভাবে ৫ বার করুন।

৪) হাতে একটি পেন্সিল বা কলম নিন। এইবার হাতটি লম্বা করে পেন্সিলটি আপনার নাক বরাবর ধরুন। এইবার ধীরে ধীরে পেন্সিলটি নাকের সামনে আনুন। যখন পেন্সিলটি নাকের দিকে আনবেন, আপনার চোখ দিয়ে পেন্সিলটি অনুসরণ করুন যতক্ষন পর্যন্ত দেখা যায়। এইবার আবার সামনে নিয়ে যান। এইভাবে ১০ বার করবেন। হাতের আঙ্গুলের সাহায্যেও এটা করতে পারেন।

৫) আপনি যখনই বাসায় বা অফিসে অনেকক্ষণ কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করবেন তখন প্রতি ২০ মিনিট পরপর, ২০ সেকেন্ড ধরে, ২০ ফুট দূরে তাকিয়ে থাকুন।

এছাড়াও প্রায় চোখের পলক ফেলুন। এতে চোখ অতিরিক্ত শুষ্কতা থেকে রেহাই পাবে। একদিন অনেক সময় ধরে ব্যায়াম করার চেয়ে প্রতিদিন করাই উত্তম। এইভাবে ব্যায়াম করলে দেখবেন দিন শেষে আপনার চোখ অন্যান্য দিনের চেয়ে কম ক্লান্ত লাগছে।

পরামর্শ.কম এ স্বাস্থ্য ও রূপচর্চা বিভাগে প্রকাশিত লেখাগুলো সংশ্লিষ্ট লেখকের ব্যক্তিগত মতামত ও সাধারণ তথ্যের ভিত্তিতে লিখিত। তাই এসব লেখাকে সরাসরি চিকিৎসা বা স্বাস্থ্য অথবা রূপচর্চা বিষয়ক বিশেষজ্ঞ পরামর্শ হিসেবে গণ্য করা যাবে না। স্বাস্থ্য/ রূপচর্চা সংক্রান্ত যেকোন তথ্য কিংবা চিকিৎসার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের/বিউটিশিয়ানের শরণাপন্ন হোন।

লেখাটি সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টের মাধ্যমে জানাতে অনুরোধ করছি। পরামর্শ.কম এর অন্যান্য প্রকাশনার আপডেট পেতে যোগ দিন ফেইসবুক, টুইটার, গুগল প্লাসে অথবা নিবন্ধন করুন ইমেইলে।